অযোধ্যার ইক্ষ্বাকুবংশীয় রাজা। মণ্ডূকরাজের কন্যা সুশোভনা এঁর পত্নী। ওঁর তিন পুত্রের নাম শল, দল ও বল। একদিন মৃগয়াতে গিয়ে পরীক্ষিৎ সরোবরতীরে এক সুন্দরী কন্যাকে দেখে তাঁকে বিবাহ করতে চাইলে কন্যা বললেন যে, যদি রাজা ওঁকে কখনও জলাশয় না দেখান তাহলেই তিনি রাজাকে বিবাহ করবেন। রাজা তাতে সন্মত হয়ে ওঁকে বিবাহ করলেন। কিছুকাল পরে একদিন উদ্যানে বেড়িয়ে শ্রান্ত হয়ে উদ্যানের পাশ্র্ববর্তী একটি পুষ্করিণী দেখে রাজা তাঁর মহিষীকে সেখানে নামতে বললেন। জলে নেমে মহিষী আর উঠলেন না। তখন সেই পুষ্করিণী জলশূন্য করে রাজা দেখলেন সেখানে একটি মণ্ডূক (ব্যাং) বসে আছে। রাজা ভাবলেন যে, মণ্ডূকই তাঁর ভার্যাকে অদৃশ্য করেছে। তিনি মণ্ডূককে বধ করার আদেশ দিলেন। তখন মণ্ডূকরাজ সেখানে এসে বললেন যে, আপনার ভার্যা আমার কন্যা সুশোভনা। সে দুষ্ট স্বভাবের - এইভাবে অনেক রাজাকে সে প্রতারিত করেছে। রাজা তা সত্বেও তাঁর প্রিয়াকে চাইতে মণ্ডূকরাজ তাঁর কন্যাকে আনিয়ে দিলেন এবং তাঁকে অভিশাপ দিলেন যে, ওঁর এই অপরাধের ফলে ওঁর সন্তানরা ব্রাহ্মণদের অনিষ্ট করবে।