যাত্রা শুরু

ভাস্কর বসু

[লেখক পরিচিতি: জন্ম কলকাতায়, বেড়ে ওঠা দক্ষিণ চব্বিশ-পরগনার রাজপুর-সোনারপুর অঞ্চলে। ১৯৮৩ সালে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেক্ট্রনিক্স ও টেলিকম্যুনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে কর্মসূত্রে ব্যাঙ্গালোরে। শখের মধ্যে অল্প-বিস্তর বাংলাতে লেখা - অল্প কিছু লেখা রবিবাসরীয় আনন্দবাজার, উনিশ-কুড়ি, নির্ণয়, দেশ, ইত্যাদি পত্রিকায় এবং বিভিন্ন ওয়েব ম্যাগাজিন (সৃষ্টি, অবসর, অন্যদেশ, পরবাস ইত্যাদিতে) প্রকাশিত। সম্প্রতি নিজের একটি ব্লগ চালু করেছেন – www.bhaskarbose.com ]

বেশ কিছুদিন অনুপস্থিত থাকার পর আবার ফিরে এল আপনাদের প্রিয় অবসর পত্রিকা। এবার আত্মপ্রকাশ নতুন রূপে, ত্রৈমাসিক হিসেবে। আপাততঃ আমাদের পরিকল্পনা বছরে চারটি সংখ্যার- যথাক্রমে শীত, নববর্ষ, বর্ষা ও উৎসব। শুরু হল ২০২০র উৎসব সংখ্যা দিয়েই।

বছরের শুরুতে জানা যায়নি যে কি সাংঘাতিক বিপদের মুখে পড়তে চলেছি আমরা। বিপদ অবশ্য এখনো কাটেনি, কিন্তু তার মধ্যেও আমরা শুরু করলাম আমাদের নতুন পথচলা। আশাকরি আপনাদের সবাইকেই আবার পাশে পাব।

এখন আমাদের বিভাগসূচী নিম্নরূপঃ

প্রচ্ছদকথা
সাহিত্য
শিল্প- সংস্কৃতি
দর্শন- রাজনীতি- ইতিহাস
নারী ও সমাজ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
ক্রীড়াজগৎ

আমাদের ইচ্ছে পরবর্তীকালে আরো বিভাগ যোগ করার।

আমরা অত্যন্ত মর্মাহত এই বিপদের কালে আমরা হারিয়েছি ‘অবসর’ পত্রিকার দুই মুখ্য উপদেষ্টাদের । তাঁরা শ্রী শংকর সেন ও জিয়াউদ্দীন তারিক আলি। তাঁদের স্মৃতিচারণ দিয়েই শুরু হল আমাদের প্রথম সংখ্যার প্রচ্ছদ কথা।

প্রথম সংখ্যাতেই যে আমরা বেশ কিছু বৈচিত্র্য আনতে পেরেছি তার জন্য আমরা বিশেষভাবে কৃতজ্ঞ আমাদের লেখকমণ্ডলীর কাছে। খুবই অল্পসময়ে তাঁরা আমাদের চাহিদামত লেখা তুলে দিয়েছেন নির্দিষ্ট সময়েই। আমাদের সমস্ত পরামর্শ, তাগাদা তাঁরা হাসিমুখে মেনে নিয়ে আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমাদের আশা ভবিষ্যতেও আমরা তাঁদের এভাবেই পাশে পাব। যোগ দেবেন আরো নতুন লেখক। যোগাযোগের ঠিকানা রইল, উষ্ণ আমন্ত্রণ রইল, পুরনো, নতুন সকল লেখকদের জন্য।

লেখাগুলি সম্পর্কে বিশেষ কিছু বলার প্রয়োজন নেই, লেখকরা সকলেই আপনাদের পূর্বপরিচিত।

একটা কথা বলার, আমরা বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছি এই অদ্ভুত সঙ্কটজনক পরিস্থিতিকে। এই সময় যাঁদের হারিয়েছি তাঁদের সম্পর্কে রইল কিছু শ্রদ্ধার্ঘ্য।

আপনাদের মন্তব্যের প্রতীক্ষায় রইলাম আমরা সবাই।

উৎসবের কাল আনন্দে কাটুক সকলের। মানবসভ্যতা বহু সঙ্কট পার হয়ে এসেছে, সুতরাং আমাদের আশাবাদী হতে আদৌ কোন বাধা নেই।

ভুবনজোড়া সব পাঠকদের জন্য আমাদের রইল আন্তরিক শুভকামনা।

লেখকের অন্য লেখা:

2 replies on “যাত্রা শুরু”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ পোস্ট

চুনী গোস্বামী: ক্রীড়াপ্রেমী স্কুল-প্রাক্তনীর চোখে

কলরব রায়

কিক অফ –  গেছেন পিকে, গেছেন চুনী, গেলেন বলবীর, স্বর্গের মেন স্টেডিয়ামে বাড়ছে ক্রমেই ভীড়। ইন্দ্রজ্যেঠু করো কিছু লাইভ টেলিকাস্ট, আমরা যাতে দেখতে পারি সেই গ্লোরিয়াস পাস্ট। __ “ছড়াbituay”: ২৬শে মে, ২০২০ [বলবীর সিং মারা যাওয়ার পরদিন]   ফেসবুকে ওপরের এই পোস্টটা করেছিলাম – ওটা ছিলো আমার বহুমুখী এবং বহু-বিলম্বিত প্রতিক্রিয়া। সুবিমল (চুনী) গোস্বামী যে আর ইহজগতে […]

Read More

প্রিয় তারিক ভাই

প্রিয়াংকা আচার্য্য

 আপনার সঙ্গে আমার বেশ কিছু ছবি আছে। এটা সবচেয়ে সুন্দর। আমার খুব প্রিয়। তবে ছবিকে ঘিরে এমন অপ্রিয় এক শোক আঙুল নিঙড়ে যে এতো অসময়ে বের হবে তা কে জানতো!   আপনি ছিলেন আমার কৈশোরের ‘রিয়েল হিরো’- মুক্তির গান ছবির মোটা ফ্রেমের আড়ালে তীক্ষ্ণ দৃষ্টির সেই তেজদীপ্ত ছেলেটি। পরিচয় হওয়ার অনেক পরে জেনেছি যে আপনিই […]

Read More

বিদায় তারিক ভাই, বিদায়

সুজন দাশগুপ্ত

এই মাত্র খবর পেলাম, বন্ধু জিয়াউদ্দীন তারিক আলি আর নেই। কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত হয়ে সোমবার সকালে বাংলাদেশে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছে। ‘৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী তারিক আলী ছিলেন একজন উদার মনের মানুষ। বাংলাদেশে বহু কর্মকাণ্ডে তিনি নিবিড় ভাবে যুক্ত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের অন্যতম ট্রাস্টি হিসেবে সেটিকে গড়ে তোলার কাজে ওঁর অবদান ছিল তুলনীয়। এছাড়া সম্মিলিত সামাজিক […]

Read More

মনখারাপের তারা – সুশান্ত সিংহ রাজপুত

অনিকেত সোম

প্রতিভাবান অভিনেতা সুশান্তের আকস্মিক প্রয়াণ একরাশ মনখারাপের পাশাপাশি শুধুমাত্র আমাদের ওঁর মৃত্যুর কারণের প্রতি কৌতূহল বাড়িয়ে দিল তাই নয় প্রশ্ন উঠিয়ে দিল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির নোংরা রাজনীতি, অবসাদ, ফেলে আসা ভালোবাসা, জীবনে সঠিক ভালোবাসার মানুষকে অবিরত খুঁজে ফেরার সঠিক দিশার প্রতিও। কে এই SSR? একটু গুগল করলেই হয়তো তার হদিশ পাওয়া যেতে পারে। তবে আমার এই […]

Read More

কৈশোরের মুজতবা আবিষ্কার

ভাস্কর বসু

আমাদের কৈশোর কাল কেটেছে সত্তরের দশকে। সেই সময়কার বাংলা এখনকার থেকে অনেক আলাদা ছিল। তখন বাংলা ভাষার ও বাংলা মাধ্যম স্কুলের বেশ ভালো কদর ছিল। শিক্ষকরাও ছিলেন ছাত্রদরদী। শুধু পরীক্ষায় ভাল নম্বর নয়, তাদের সামগ্রিক বোধ যাতে পরিণত হয় সেদিকেও তাঁদের তীক্ষ্ণ নজর থাকতো। এছাড়া জানিনা কতটা বিশ্বাসযোগ্য হবে, সেই সময় আমাদের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার […]

Read More
+